এতে (‌‘থার্ড পারসন সিঙ্গুলার নাম্বার') পরিচালক মোস্তফা সরওয়ার ফারুকী তার ভাই-বেরাদর সহযোগে একধরনের ফুর্তির আয়োজন করতে পেরেছেন। এতে অন্তত পাঁচ ধরনের বাণিজ্যিক জোশ আমদানি করতে পেরেছেন। [...]

সিনেমা হলে গিয়ে সিনেমা দেখি না বহুদিন হলো। পারিবারিক আয়োজনের ভিতর দিয়েই তা দেখতে হলো। তার মানে শহুরে মধ্যবিত্তকে টিভি কীভাবে নিয়ন্ত্রণ করে এতে কিছুটা হলেও বোঝা যায়। এটি প্রায় দুই ঘণ্টা সময়ের এক আয়োজন। এতে পরিচালক মোস্তফা সরওয়ার ফারুকী তার ভাই-বেরাদর সহযোগে একধরনের ফুর্তির আয়োজন করতে পেরেছেন। এতে অন্তত পাঁচ ধরনের বাণিজ্যিক জোশ আমদানি করতে পেরেছেন। সেগুলি একে একে জানানোর চেষ্টা করব।

১. যৌনতা : যৌনতার এমন সর্বব্যাপী ব্যবহার খুব কম ছবিতেই দেখা গেছে। একাকী এক মেয়ে এই সমাজে চলা খুবই ডিফিকাল্ট। নষ্টভ্রষ্ট সমাজ তাকে বেঁচে থাকার এতটুকু সাহস শক্তি তৎপরতা দিতে পারে না। তা এ ছবিটিতে আছে। কিন্তু এটিকে পুঁজি করে পুঁজি বানানোর এমন ধান্ধা সত্যি বিরল।

২. কমপিউটারাইজ্‌ড লাইফ : ইন্টারনেটে এখন যে ফেসবুক, ব্লগ, ইমেইল, টিভি-কার্ডের সম্মিলিত ব্যবহারের আয়োজন লক্ষ করা যায়, এমনই হুলস্থূল এক লম্ফঝম্ফ দেখা যায়। আমরা আশির দশকে শুনতাম, অঞ্জু ঘোষ সিনেমায় থাকবে, আর সে জলে নামবে না, তা তো হয় না। সেই রূপ ফারুকী ফিল্ম করবে তাতে সেলফোন থাকবে না, তা কী করে হয়?

৩. সতীত্ব প্রকল্প : যত যাই হোক, সতী নারীর পতি মরে না! এই হচ্ছে সনাতন চিন্তাভাবনার আধুনিক রূপায়ন। পরকীয়া আছে-আছে করেও নাই। আর এমন হাস্যকর সতীপনা, বাবা কেন চাকর ধরনের বাণিজ্যিক ছবিতেও হয়ত এতো দেখা যায় না।

৪. পার্টনার বাণিজ্য : এর রেডিও পার্টনার রেডিও ফুর্তি; আর এটিকে অত্যন্ত নির্লজ্জের সাথে চালাকি করে ফিল্মটিতে সরাসরি দেখানো হলো। তপু নামের গায়কটির সরাসরি উল্লেখ থাকলেও তিশা আর মোশাররফকে যথাক্রমে রুবা আর মুন্না চরিত্রেই অভিনয় করে যেতে হয়।

৫. চরিত-বিধান : কোনো একটা চরিত্রেরই কোনো বিকাশ নেই। এমনকি কেন্দ্রীয় মেয়ে চরিত্রটিও শেষতক পরিচালকের হাতের পুতুল হয়ে থাকে। আবার তাদের সুখে-শান্তিতে বসবাস করানোর জন্য স্বামী-স্ত্রী-বন্ধুকে একেবারে কক্সবাজার পাঠিয়ে দেয়া হয়। কক্সবাজার পাঠানো মানেই যেন ভালোবাসার বিদ্যানিকেতনে ভর্তি করিয়ে দেয়া। বালখিল্যতা কারে কয়!

চট্টগ্রামের আলমাস সিনেমা হলে খেয়াল করলাম, এর দর্শক মূলত কলেজ-ভার্সিটির ছেলে-মেয়ে। এরা যে ছবিটি দেখে কতভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবে! কর্পোরেট পুঁজির কী যে দাপট এখানে! এই ধরনের ছবির চেয়ে কথিত বাণিজ্যিক ছবি অনেক ভালো, কারণ এ সম্পর্কে আমরা জানি, আগে থেকেই সতর্ক থাকি। কিন্তু চ্যানেল আই-এর মতো মুক্তবুদ্ধির বাহকরা যেখানে এই কর্মের সারথী সেখানে এই শহুরে-ছটফটে-অস্থির মধ্যবিত্তের আর উপায় কী! ফারুকী-গংরা এই সমাজের ভিতর থেকে পচন না ধরিয়ে ছাড়বে না।

কামরুজ্জামান জাহাঙ্গীর

কথাসাহিত্য চর্চার সঙ্গে যুক্ত। পেশায় চিকিৎসক। মানুষকে পাঠ করতে পছন্দ করি। আমি মানুষ এবং মানব-সমাজের যাবতীয় অনুষঙ্গে লিপ্ত থাকার বাসনা রাখি।

43
আলোচনা শুরু করুন কিংবা চলমান আলোচনায় অংশ নিন ~

মন্তব্য করতে হলে মুক্তাঙ্গনে লগ্-ইন করুন
avatar
  সাবস্ক্রাইব করুন  
সাম্প্রতিকতম সবচেয়ে পুরোনো সর্বাধিক ভোটপ্রাপ্ত
অবগত করুন
ডোবারব্যাং
অতিথি
ডোবারব্যাং

৮০’র দশকের বায়ুসেবী মধ্যবিত্ত্যের নাট্যকার ছিলেন হুমায়ুন আহমেদ…সেই স্টাইলের মধ্যবিত্ত এখন নেই…তাই সেই মধ্যবিত্তের নাট্যকার হুমায়ুন আহমেদও এখন প্রয়াত…আজকের দিনের খাটাস মধ্যবিত্তের প্রেমযৌনতাআলগাস্মার্টনেসের রুপদাতা ফারুকী…ফিলসফিক্যালি ফারুকী আর হুমায়ুন আহমেদ একই গুয়ের এপিঠ-ওপিঠ…স্লাইট যে ফারাক, সেটা হলো, হুমায়ুন আহমেদ অপ্রাসঙ্গিক হতে খানিকটা সময় লেগেছে…আর ফারুকী টাইপের জিনিসগুলো গুয়ের নর্দমায় ভেসে যেতে সময় লাগবে আরো কম…

(অফটপিকঃ আপনি কি বেশ কয়েকবছর আগে শহীদুল জহিরের সাক্ষাতকার নিয়েছিলেন? যদি নিয়ে থাকেন, তাহলে সেটা কি পুনঃপ্রকাশ করে আমাদের মত পাঠককূলকে কৃতজ্ঞতাপাশে আবদ্ধ করে বাধিত করবেন?)

অলৌকিক হাসান
সদস্য

ডোবারব্যঙের কমেন্টে ঝাজা। আমি চ্যালেঞ্জ জানিয়েছিলাম হুমায়ুন আহমেদের ১৫টি নাটক আমাকে এনে দিলে আমি সম্পাদনা করে একটি নাটক বানাব যার ঘটনাপ্রবাহ থেকে শুরু করে কাহিনি সবকিছুই একটি পূর্ণাঙ্গ নাটকের মতোই মনে হবে। ফারুকীর নাটকের (মূলত ভাইবেরাদার, ফারুকী বছরে ১/২টি নাটক বানান) ক্ষেত্রেও একই চ্যালেঞ্জ রইল। ফারুকী ভাই বেরাদার নামক একটি শ্রেণি তৈরি করেছেন যারা তাদের গুরুর (ফারুকী) মেধা (!) কে অনুসরণ না করে অনুকরণ করছে। তাই তাদের সবগুলো নাটক দেখতে শুনতে একই রকম। ভাই বেরাদারদের নাটক দেখে সবাই বলে ফারুকীর নাটক দেখেছি। এমনই তাদের কপাল!! গুরুর নামকে ছাপিয়ে উঠতে পারছে না। থার্ড পারসন সিঙ্গুলার নাম্বার ছবিটি এখনও দেখিনি। তাই মন্তব্য… বাকিটুকু পড়ুন »

তানবীরা
সদস্য

প্রত্যেকে একটা ঘরানা যাকে বলে ষ্টাইল বানিয়ে নিয়েছেন। হুমায়ূন আহমেদের কাহিনী থেকে পাত্র পাত্রী সব সেট। প্রত্যেক নাটকের কাহিনী থেকে বাবা – মা, চাকর সব এক লোক।

ফারুকী আর আনিসুল হকের অবস্থাও প্রায় একই।
জনপ্রিয় হওয়া এক জিনিস আর ধরে রাখা আলাদা।

শিক্ষানবিস
সদস্য

ভেবেছিলাম সিনেমাটা ভালো হবে। ফিল্ম ফেস্টিভাল একটাতে বেশ প্রশংসাও পেয়েছিল। ভ্যারাইটি-র রিভিউটাও ওভারঅল খারাপ ছিল না। আপনার লেখা পড়ে দেখি অন্য অবস্থা। আমি অবশ্য এখনও দেখি নি। আশা কমে গেল অনেক।

রায়হান রশিদ
সদস্য

বছর কয়েক আগে আহমেদ মুনির এর একটা রিভিউ পড়েছিলাম। মারজুক রাসেল এর কোন এক কবিতার বই নিয়ে ছিল সেটি। এই রিভিউটি কারও সংগ্রহে থাকলে দয়া করে তুলে দেবেন? আহমেদ মুনির এর একটা বাক্য এখনো কানে বাজে: “দেশে এখন স্রেফ দুই শ্রেনীর মানুষ, যারা ‘ব্যাচেলর’ দেখেছেন আর যারা ‘ব্যাচেলর’ দেখেননি”
কামরুজ্জামান জাহাঙ্গীরকে অনেক ধন্যবাদ পোস্টটির জন্য।

অঞ্জন সরকার  জিমি
সদস্য
অঞ্জন সরকার জিমি

ইদানীং দেখা যাচ্ছে কোনো চলচ্চিত্র বা টিভি নাটক নির্মাণের পরপরই বিভিন্ন ব্লগে মোস্তফা সেরায়ার ফারুকী এবং তার ভাই-বেরাদরদের সবাই বেধরক ধোলাই দিচ্ছেন। এটা দর্শক করতেই পারেন। কিন্তু সবাই কি খেয়াল করে দেখেছেন এসব নাটকের বেশিরভাগ চিত্রনাট্য আনিসুল হক নামের এক লোকের লেখা যিনি কিছু সাহিত্যকর্মও রচনা করেছেন বটে, এবং একটি পত্রিকার উপসম্পাদকও। তার এই নিম্নরুচির অখাদ্য চিত্রনাট্য সম্পর্কে কাউকে কোনো মন্তব্য করতে দেখা যায় না। এই লোকটি যে না জেনে এসব চিত্রনাট্য লেখেন তা কিন্তু না, তাঁর বেশকিছু রচনা ও চিত্রনাট্য দর্শকদের মন ছুয়েঁ গেছে বলেই জানি। তবুও কেন তিনি এমন লেখেন? শুধুই অর্থ রোজগারের জন্য?

faisal
অতিথি
faisal
ইসহাক মাহমুদ
অতিথি
ইসহাক মাহমুদ

ভাই, আজিজ মার্কেটের কোথায় বসেন ?

রাফিন সাজ্জাদ
অতিথি
রাফিন সাজ্জাদ

কথায় বলে অল্প বিদ্যা ভয়ংকর, আবার আমরা এও জানি অশিক্ষা অভিশাপ সরূপ। স্বঘোষিত কথাসাহিতি্ক আবার পেশায় চিকিৎসক জনাব কামরুজ্জমান জাহাঙ্গীর আমাদেরকে দেখিয়ে দিলেন কিভাবে একজন মানুষ একি সাথে ভয়ংকর আবার অভিশপ্ত হয়। যেকোন একটা বিষয়ে মন্তব্য করতে হলে বিষয়টি সম্পরকে কিছু হলেও জানতে হয়। আর যদি সমালোচনা করতে হ্য় তাহলেতো বিষয়টি সম্পরকে ভালোমতন জ্ঞ্যান থাকতেই হয়। স্বঘোষিত কথাসাহিতি্ক আবার পেশায় চিকিৎসক জনাব কামরুজ্জমান জাহাঙ্গীর একটি ছিনেমা সম্পরকে যা লিখলেন তা পরে প্রথমেই মনে হল “বেকুবটায় কয়কি?“। একজন মানুষ মানসিকভাবে কতটা অথর্ব না হলে ছিনেমার সমালোচনা এইভাবে করে। জিনিষটাকে সমালোচনা না বলে অথর্ব লেখন বলা যায়। আমি নিশ্চিত উনি ওনার এই… বাকিটুকু পড়ুন »

রাফিন সাজ্জাদ
অতিথি
রাফিন সাজ্জাদ

একটি ছোট ভুল হয়েছে,,
“একজন মানুষ মানসিকভাবে কতটা অথর্ব না হলে ছিনেমার সমালোচনা এইভাবে করে।”
কথাটা আসলে হবে,
“একজন মানুষ মানসিকভাবে কতটা অথর্ব হলে ছিনেমার সমালোচনা এইভাবে করে।”

রাফিন সাজ্জাদ
অতিথি
রাফিন সাজ্জাদ

ছোটবেলায় পরেছিলাম যে কাব্য চর্চা করে সে হয় কবি, যে লেখালেখি করে সে হয় লেখক। আপনিতো দাদা স্বঘোষিতভাবে “কথাসাহিত্য চর্চার সঙ্গে যুক্ত”, তো দয়াকরে বলবেন আপনি কবি নাকি খেলোয়ার??? চিকিৎসক বলেইতো অবাকটা হলাম, কারণ আমার জানামতে তাঁরা অনেক জ্ঞ্যান রাখেন। যাই হোক আপনার বাড়ির পড়া(home work) শেষ না হওয়া পর্যন্ত আপনার সাথে কোন কথা নেই নেই নেই। এইবার আমি একটা প্রাণীর কাহিনী বলবো। প্রাণীটির নাম ব্যাঙ(Frogs are amphibians in the order Anura (meaning “tail-less”, from Greek an-, without + oura, tail), formerly referred to as Salientia (Latin salere (salio), “to jump”). Most frogs are characterized by long hind legs, a… বাকিটুকু পড়ুন »

tinos
সদস্য

মুক্তাঙ্গন ব্যক্তিগত আক্রমণ প্রবণতা চর্চার জায়গা নয়। সম্প্রতি কামরুজ্জামান জাহাঙ্গীরের ‘থার্ড পারসন সিঙ্গুলার নাম্বার’ শীর্ষক লেখাটির প্রতিক্রিয়া হিসেবে যে-মন্তব্যগুলো এসেছে, তার কয়েকটি মডারেশনের অনুপস্থিতির কারণেই প্রকাশিত হতে পেরেছে। মুক্তাঙ্গন কর্তৃপক্ষ এ জাতীয় মন্তব্য মুছে দেয়ার অধিকার সংরক্ষণ করেন। মোস্তফা সরয়ার ফারুকী পরিচালিত কাহিনিচিত্রটির যে-সমালোচনা কামরুজ্জামান জাহাঙ্গীর উপস্থাপন করেছেন, তার পক্ষে-বিপক্ষে মন্তব্য এসেছে; ব্লগে সেটাই স্বাভাবিক ও প্রত্যাশিত। কিন্তু প্রসঙ্গ-বহির্ভূতভাবে অহেতুক বাগবিস্তার, কলহপ্রবণতা ইত্যাদি আলোচনার পথকে সুগম করে না — এক্ষেত্রেও করেনি। ব্লগে প্রকাশিত যে-কোনো পোস্টের বক্তব্যের দায়ভাগ লেখকের নিজের। আলোচ্য লেখাটিতেও লেখকের নিজস্ব শিল্পবোধ ও দৃষ্টিভঙ্গির প্রতিফলন ঘটেছে। মুক্তাঙ্গন ব্লগকে কামরুজ্জামান জাহাঙ্গীর ইতিপূর্বে ‘শুচিবায়ুগ্রস্ত’ হিসেবে অভিহিত করেছেন, অনুযোগ করেছেন প্রমিত… বাকিটুকু পড়ুন »

Shamset Tabrejee
সদস্য

একটি ফিল্মের আপত্তির অনেক বিষয়ই থাকতে পারে। কিন্তু ফিল্মের আলোচনা তার ভাষার বৈশিষ্ঠের দিক থেকে করা দরকার। ফিল্মে সমাজের বিষয়টি ব্যক্তিগত পছন্দ না, ডিসকোর্স হিশাবে দেখা উচিত।

  • Sign up
Password Strength Very Weak
Lost your password? Please enter your username or email address. You will receive a link to create a new password via email.
We do not share your personal details with anyone.