'যুদ্ধাপরাধ' ইস্যুতে সাম্প্রতিক‌-তথ্য আর্কাইভ গঠনে সাহায্য প্রয়োজন

মুক্তাঙ্গন এর সাম্প্রতিক স্বেচ্ছাসেবক সংগ্রহ-আহ্বানে সাড়া দিয়েছেন বহু মানুষ। ‘যুদ্ধাপরাধ ওয়ার্কগ্রুপ’ এবং ‘যুদ্ধাপরাধ স্ট্র্যাটেজি ফোরাম’‌‌-এ সংশ্লিষ্ট হবার আগ্রহও ব্যক্ত করেছেন অনেকে। তাঁদের এ আগ্রহ এবং প্রতিজ্ঞা এক দিকে যেমন এ বিষয়ে যাঁরা কাজ করছেন তাদের সবার জন্য উৎসাহব্যঞ্জক, তেমনি (আমাদের বিশ্বাস) তা সবাইকে মনে করিয়ে দেবে যে এখনো হতাশ হবার মতো কিছু ঘটেনি। আশার বাতিটুকু হাতে নিয়ে এখনো অনেকটা পথ পাড়ি দেয়া বাকি, পাড়ি দেয়া দরকার।

ওয়ার্কগ্রুপ এবং ফোরামের কাজের ধরণ বিবেচনায় ইচ্ছে থাকলেও সবাইকে এ মুহুর্তে অন্তর্ভুক্ত করে নিতে পারছি না আমরা, সঙ্গত কারণেই। কাজের ধরণ, কাজের পরিমান এবং বিভিন্ন নিরাপত্তাজনিত বিষয় বিবেচনায় এই দু’টো গ্রুপকেই আপাতত কঠোরভাবে ‘সংরক্ষিত’ রাখতে হচ্ছে কেবল তাঁদেরই মধ্যে, যাঁরা:

(ক) পূর্ণ কমিটমেন্ট সহকারে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে এ বিষয়ে কাজ করতে প্রস্তুত;
(খ) দায়িত্বপালনে এখানকার কাজকে (অগ্রাধিকার ভিত্তিতে) যথেষ্ট সময় দিতে প্রস্তুত;
(গ) গবেষণা দক্ষতা, বিশেষজ্ঞ জ্ঞান, যোগাযোগ এবং সাংগঠনিক অভিজ্ঞতা দিয়ে এখানকার করণীয় কাজগুলোতে উল্লেখযোগ্য অবদান রেখে একে এগিয়ে নিতে পারবেন বা গতি আরও ত্বরাণ্বিত করতে পারবেন।

তবে, অংশগ্রহণে আগ্রহীদের জন্য এখনো রয়েছে নিজ নিজ অবস্থান থেকে নিজের সময় এবং সুবিধেমতো বিশেষ অবদান রাখার সুযোগ। যেমন:
যুদ্ধাপরাধ স্ট্র্যাটেজি ফোরামের এই অংশটাতে প্রাসঙ্গিক সমস্ত খবর, নিবন্ধ, ব্লগ, বিবৃতি, বক্তব্য, রিপোর্টগুলো সংগ্রহ করা হচ্ছে, সাম্প্রতিক ঘটনাবলীর একটি পূর্ণ আর্কাইভ গড়ে তোলার লক্ষ্যে। এই লিন্কে দেয়া পাতাটির বিন্যাস দেখলেই স্পষ্ট হবে ঠিক কি ধরণের তথ্য খোঁজা হচ্ছে। যে কেউ নিবন্ধন ছাড়াই যে কোন লিন্ক (পারলে এর কনটেন্টটুকুও কপিপেস্ট করে) সেখানে “NEW TOPIC” বোতামটি ক্লিক করে তথ্য হিসেবে সংযোজন/পেশ করতে পারবেন। কোন তথ্যের পুনরাবৃত্তি হচ্ছে কি না সে বিষয়ে তথ্যদাতার চিন্তিত হবার কিছু নেই। ফোরাম মডারেটরগণ সে সব সাজিয়ে নিতে পারবেন প্রয়োজনমতো। তবে উল্লেখ্য, প্রতিটি সাবমিশনই চূড়ান্তভাবে ফোরাম ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হবার আগে অবশ্যই মডারেশন প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে যাবে, বোধগম্য কারণেই।

এই কাজটি সবাই মিলে করতে পারলে ধীরে ধীরে একটা বিশাল তথ্যভান্ডার গড়ে উঠতে পারে, যেটা সবারই কাজে লাগবে। কারণ, এভাবে যে আর্কাইভ গড়ে উঠবে, তা থেকে যুদ্ধাপরাধের-বিচার বিষয়ে ঘটনার গতি-প্রকৃতি-অগ্রগতি খুব সহজেই একটি পোর্টালের ভেতরেই মনিটর করা সম্ভব হবে, এবং সে অনুযায়ী কর্মপন্থা নির্ধারণ করা যাবে। এছাড়াও, আর যাঁরা যুদ্ধাপরাধীদের বিচার নিয়ে লিখতে আগ্রহী (যে ধরণের লেখায় এখন মিডিয়া ছেয়ে যাওয়া দরকার) তাদের জন্যও এটা হতে পারে একটা গুরুত্বপূর্ণ তথ্যের উৎস। মূল কথা হল: সব তথ্য হাতের নাগালে থাকা একান্ত জরুরী।

এই মুহুর্তে ঠিক এই দিকটাতে আমাদের সবচেয়ে বেশী সাহায্য দরকার। আশা করি আপনারও সহায়তা পাবো। এই বিষয়ে যোগাযোগের ঠিকানা:

wcsf [dot] workgroup [at] gmail [dot] com

3
আলোচনা শুরু করুন কিংবা চলমান আলোচনায় অংশ নিন ~

মন্তব্য করতে হলে মুক্তাঙ্গনে লগ্-ইন করুন
avatar
  সাবস্ক্রাইব করুন  
সাম্প্রতিকতম সবচেয়ে পুরোনো সর্বাধিক ভোটপ্রাপ্ত
অবগত করুন
সৈকত আচার্য
সদস্য

এই ধরনের উদ্যোগ এই সময়ের বাস্তবতায় অত্যন্ত জরুরী। যে কোন গুরুত্বপূর্ন তথ্য পেলে আমি নিজ সুযোগ ও সময়মতো এই আর্কাইভে তুলে দেব এই অংগীকার করতে চাই, সাথে সাথে বাকী সবাইকেও আহবান জানাই, এই ষ্ট্র্যাটেজি ফোরামকে শক্তিশালী করার লক্ষ্যে প্রত্যেকে নিজস্ব অবস্থান থেকে ভূমিকা পালন করবেন।

অবিশ্রুত
সদস্য

খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি উদ্যোগ। যদিও ফোরামের দিকে নজর দিলেই একনজরে বুঝে নেয়া সম্ভব যে, নিবেদিতপ্রাণ তরুণরা এখানে সমবেতভাবে কাজ করছেন, তারপরও প্রতি মাসে এই কাজের অগ্রগতি নিয়ে একটি সারাংশ আমরা সাধারণ সদস্যরা পেতে পারি কি?
আমাদের পূর্ণ সমর্থন রইলো আপনাদের প্রতি। শুধু সমর্থন নয়, আমরাও যেভাবে পারি এই মহাযজ্ঞে অংশ নিচ্ছি।

কামরুজ্জামান  জাহাঙ্গীর
সদস্য

খুবই চমৎকার আয়োজন। এর সাখে সহমর্মীতা না-দেখানোর কোনো কারণই নেই। যুদ্ধাপরাধ বিষয়ে সমকালীন কোনো তথ্য পেলে অবশ্যই জানাবো। মুক্তাঙ্গনের প্রচেষ্টা স্বার্থক হোক।

  • Sign up
Password Strength Very Weak
Lost your password? Please enter your username or email address. You will receive a link to create a new password via email.
We do not share your personal details with anyone.