অস্কার-সম্ভবা “আভাতার” ও ঢাকাই ঢিষ্টিং ঢিষ্টিং ফিলিমের সাদৃশ্যসমূহ

অনেক কষ্টে পকেটের টাকা গুনিয়া দিয়া অত্যাধুনিক থিয়েটারে বসিয়া চোখে কালো চশমা পরিধান করিয়া তিন মাত্রায় বিস্তৃত (3D) অস্কার তথা সারা পৃথিবী বিজয়ী চলচিত্র “আভাতার” দেখিয়া আসিলাম।[...]

অনেক কষ্টে পকেটের টাকা গুনিয়া দিয়া অত্যাধুনিক থিয়েটারে বসিয়া চোখে কালো চশমা পরিধান করিয়া তিন মাত্রায় বিস্তৃত (3D) অস্কার তথা সারা পৃথিবী বিজয়ী চলচিত্র “আভাতার” দেখিয়া আসিলাম। অনলাইনে ফ্রীতে দেখি নাই মজা নষ্ট হইয়া যাইবে বিধায়। সাধারন সিনেমার টিকিটের থেকে বেশি মূল্যে তিন মাত্রায় বিস্তৃত সিনেমার টিকিট কিনিয়া হলে বসিয়া বসিয়া আমি পাপিষ্ঠা ভাবিতেছিলাম ঢাকাই ফিলিমের সাথে এটার এতো মিল মিল লাগে ক্যান?

১. নায়ক পড়বিতো পর মালীর ঘাড়ের মতো, বিপদে পড়লতো টারজান মার্কা নায়িকাই আসলো বাঁচাতে। যদিও পরে জংগল ভর্তি বহু সাহসী মানুষকে দেখা গিয়েছিল কিন্তু সেই মূহুর্তে নায়িকা সহায়।
২. নায়কের “জাংগল লাইফের” শিক্ষা দীক্ষার সব ভার অবধারিতভাবে নায়িকার ওপরই বর্তাইলো।
৩. প্যানডোরা দেশের নায়িকা প্রথমে পৃথিবীর নায়ককে “ক্ষ্যাত – গাধা” ভাবলেও অবশেষে দুজনের মধ্যে প্রেমতো হলোই।
৪. ‘গ্রেস’ যখন অসুস্থ হলো, সবাই গান গেয়ে প্রার্থনা করলো। সাধারনতঃ এধরনের গানে প্রায় সবসময়ই ঢাকাই ছবিতে কাজ হয় কিন্তু এটাতে ‘গ্রেস’ মরে গেলেও গান গাওয়া হয়েছিল।
৫. নায়ক প্রথমে বুঝে না বুঝে যেই অভিসন্ধি নিয়েই মিশনে নেমেছিলেন, পরে দুঃস্থদের স্বার্থ রক্ষা করতে নিজের স্বার্থ জলাঞ্জলি দিয়েই দিলেন।
৬. সমস্ত অত্যাধুনিক অস্ত্রশস্ত্র , কৌশল, বোমা সব সাবেক কালের তীর ধনুক আর ছুরির কাছে ফেল মারলো।
৭. প্রথমে বিমানবাহিনী তারপরে সেনাবাহিনী যুদ্ধে ফেল মারলো। অবশেষে “আইওয়া” তাদের প্রার্থনা শুনলো এবং ঘোড়া, বানর ও আরো নাম না জানা নানা পশু মানে বনবাহিনী এসে যুদ্ধে অংশগ্রহন করে তাদের মাতৃভূমিকে রক্ষা করলো
৮. ভিন গ্রহের মানুষ হয়েও নায়িকা এবং তার পিতা মাতা মাঝে মাঝে ভিলেনরা পর্যন্ত শুদ্ধ এ্যমেরিকান ইংলিশ ও একসেন্টে কথা কইলো
৯. শেষ দৃশ্যে নায়কের শ্বাস বন্ধ হওয়ার উপক্রম হওয়া মাত্র নায়িকা যে জীবনে চেয়ার টেবিলও চোখে দেখে নাই, সে অক্সিজেন মাস্ক টানিয়া আনিয়া নায়কের মুখে জায়গামতো পরাইয়া দিলো
১০. নায়িকাকে প্রানে রক্ষা করতে যাইয়াই নায়ক প্রচন্ড রকম আহত হইলো।
১১. নায়িকাকে ভালোবাসার কারনেই নায়ক নিজ গ্রুপের সাথে “বাগাওয়াত” করলো
১২. নায়িকাকে ভিলেন “পাইছি তোরে” ভাব নিয়া আটকে ফেলা মাত্র, নায়ক অন্য জায়গা থেকে উড়ে এসে নায়িকাকে রক্ষা করে ফেলল।
১৩. মুগাম্বোর মতো এখানেও “টরুক মাতুকা” আছেন তাদের ভগবান।
১৪. নায়ক তাদের ক্ষতি করতে এসেছিলো জেনে নায়িকা আর নায়কের মধ্যে ট্যান্ডাই ম্যান্ডাই হলেও পরে নায়িকার ভুল ভাঙ্গে যে নায়ক আসলে “লুক” ভালো।
১৫. নায়িকার কথিত হবু স্বামী প্রথম থেকেই নায়ককে অপছন্দ করতো, নায়ক নায়িকা দুজনে দুজনের হয়ে যাওয়াতে তিনি প্রচন্ড নাখোশ হন
১৬. ভিনগ্রহের লোকজনেরও প্রার্থনার জন্য বিশেষ জায়গা আছে।
১৭. নায়িকা ভিনগ্রহের রাজকন্যা পরে নায়ক গোত্রের কর্নধার হয়
১৮. শেষ দৃশ্যে বিজ্ঞানের বদলে শুধুমাত্র তন্ত্র মন্ত্রের দ্বারা তারা নায়কের আত্মা এবং শরীরকে অন্য মাত্রা দিতে সাফল্য অর্জন করেন।

তানবীরা

আমি নিজেকে কোনদিন খুব গুরুত্বপূর্ণ ভাবিনি, মনের ভুলেও না। কখনো কখনো মনে হয়েছিলো যে আমার প্রয়োজন রয়েছে, এইমাত্র।

23
আলোচনা শুরু করুন কিংবা চলমান আলোচনায় অংশ নিন ~

মন্তব্য করতে হলে মুক্তাঙ্গনে লগ্-ইন করুন
avatar
  সাবস্ক্রাইব করুন  
সাম্প্রতিকতম সবচেয়ে পুরোনো সর্বাধিক ভোটপ্রাপ্ত
অবগত করুন
রায়হান রশিদ
সদস্য

শুরুতে বিজ্ঞাপনের সময়ই ঠিক নাকের ওপর যেভাবে এসে শ্যাম্পেনের গ্লাস চুরমার হয়ে সারা সিনেমা হলে ছিটিয়ে পড়লো, তার পর থেকে ‘অবতার’ এর কাহিনীতে আর তেমন মনযোগই দিতে পারিনি। ত্রিমাত্রিক দৃশ্যজগতই দেখছিলাম বিস্ময় নিয়ে, যুক্তি আর সমালোচনার টুপি ঝটপট জ্যাকেটের পকেটে ঢুকিয়ে ফেলে। প্রযুক্তির সুবাদে প্রথম সবাক চলচিত্র, প্রথম রঙিন টেলিভিশন, কিংবা প্রথম ত্রিমাত্রিক/ডলবি শব্দায়ন বুঝি মানুষ এমনই বিস্ময় নিয়ে উপভোগ করেছিল! কিছুটা না হয় ঢাকাই ঢিস্টিং ঢিস্টিংই হল, ক্ষতি কি? ১৫. নায়িকার ভাই প্রথম থেকেই নায়ককে অপছন্দ করতো, নায়ক নায়িকা দুজনে দুজনের হয়ে যাওয়াতে নায়িকার ভাই প্রচন্ড নাখোশ হয় লেজবিশিষ্ট সম্ভ্রান্ত চেহারার লেঙ্গটি পরিহিত ক্রুদ্ধ-ঈর্ষান্বিত সেই ভদ্রলোক নায়িকার ভাই ছিলেন… বাকিটুকু পড়ুন »

শামীম আহমেদ
অতিথি
শামীম আহমেদ

লেখা ভাল লেগেছে। তুলনা সুন্দর হয়েছে। অনেক মজা পেয়েছি।

সুব্রত
অতিথি
সুব্রত

গল্প নাটক তো এমনি হয়। অনেকগুলো coincidence মিলিয়ে মিলিয়ে গল্প তৈরি হয়। বা বলতে পারেন- অনেকগুলো coincidence এক সাথে হলেই সেটা গল্প হয়ে ওঠে। অনেক লেখক অনেক সাবধানে coincidence মেলান। অনেকে তোয়াক্কাই করেন না। যেমন রবীন্দ্র নাথের ‘নৌকা ডুবি’। এটাকে অনেকেই গাঁজাখুড়ি বলেন। আবার আপাত দৃষ্টিতে গাঁজাখুড়ি মনে হয় না এমন গল্প ‘মধ্যবর্তিনী’। তারপরেও কোন বেরসিক প্রশ্ন করে বসতে পারেন- ছোট বৌ ই মরল কেন? এর পর যদি ঋত্বিক ঘটকে যান। তাহলেতো বোধহয় আপনি তার নামে ফাঁসি ঘোষণা করবেন। সুবর্ণ রেখায় ঈশ্বর গলায় ফাঁসি নিতে যাচ্ছেন। এমন সময় জানালা দিয়ে হর প্রসাদের মাথা। যেই আদর্শবাদী বন্ধুকে ফেলে আরও ১৫/১৬ বছর… বাকিটুকু পড়ুন »

সুব্রত
অতিথি
সুব্রত

আমি বাংলা টাইপে খুব দুর্বল। অনেক কষ্টে লিখেছি। পোস্ট করার পর আন্দাজ করলাম অনেক ভুল বানান রয়ে গেছে। নিজ গুণে ক্ষমা করে দেবেন।
* উদ্ধুতি গুলো, উদাহরণ গুলো স্মৃতি হাতরে লেখা। কোনটা বা পড়া বছর দশেক আগে। একটু এদিক ওদিক হতে পারে।

রাগিব হাসান
অতিথি

আমার ঐ মন্তব্যটা উদ্ধৃত করার জন্য তানবীরাকে ধন্যবাদ। অবতার দেখে প্রথমত মনে হয়েছে, খুব ভালো গ্রাফিক্সের কাজ সহ পোকাহোন্টাস কার্টুনটা দেখছি। মার্কিনী চলচ্চিত্রে আমেরিকার আদিবাসীদের একটা স্টেরিওটাইপ আছে। জেমস ক্যামেরন সেই স্টেরিওটাইপের বাইরে যেতে পারেননি, বরং বেশ কিছু জিনিষের খিচুড়ি বানিয়েছেন। পোকাহোন্টাসের কথা তো আগেই বলেছি, আর সিনেমার প্রথম ও মাঝের অংশ নেয়া হয়েছে কেভিন কস্টনার অভিনীত ড্যান্সেস উইথ দ্য উল্ভস সিনেমা থেকে। (উইকির কাহিনী সংক্ষেপ মিলিয়ে দেখুন)। এখানে দেখার মতো একটাই জিনিষ আছে, তা হলো গ্রাফিক্সের কাজ। গণকমিস্তিরি হিসাবে যখন গ্রাফিক্সের কোর্স পড়ছিলাম, প্রফেসর বলেছিলো, অ্যানিমেশনের সবচেয়ে কঠিন কাজগুলোর মধ্যে রয়েছে মানুষের চুল আর চামড়াকে বাস্তবধর্মী ভাবে ফুটিয়ে তোলা।… বাকিটুকু পড়ুন »

ফারুক ওয়াসিফ
সদস্য

উপনিবেশিত, ন্যাটিভ নিজেই নিজেকে নেতৃত্ব দিতে সক্ষম, নিজেই পারে তার ভাগ্য বদলাতে, আলোকিত পশ্চিম আর তার স্যাটেলাইট ন্যাটিভ এলিটরা এটা যেদিন মানবে, সেদিন তো আর তাদের মুরুব্বিগিরি থাকে না। তাই সবচে মহান পাশ্চাত্য নেতাও তৃতীয় দুনিয়ার সমকক্ষ হতে ভালবাসেন না, তিনি চান ত্রাতা হতে। কিন্তু ত্রাতা নিজেই যদি অধিপতি হন, তাহলে ত্রাতার হাত অবশ্যই অধিপতিরই হাত। এই হাত ঢাকার কাজ আগে মিশনারিরা করেছে, এখন এনজিও করে আর করে হলিউডি ফিলিম। লেখা দারুণ হইছে। চলুক। মজার কথা মনে হলো: ওবামাকে বসানো হয়েছে পাবলিক স্টান্ট হিসেবে, মার্টিন লূথার কিং জুনিয়র-এর অবতার হিসেবে। এখন তারো কি উচিক অবতারের নায়কের মতো বদলে যাওয়া? অবতার… বাকিটুকু পড়ুন »

tinos
সদস্য

@ তানবীরা, আপনার এই পোস্টটি মুক্তাঙ্গন এর রি-পোস্ট নীতির পরিপন্থী হওয়ার কারণে প্রথম পাতা থেকে আপনার ব্যক্তিগত ব্লগ-পাতায় সরিয়ে দেয়া হল। এই পোস্টটি গত ৬ ফেব্রুয়ারী আপনি আমরা বন্ধু প্লাটফর্মে প্রকাশ করেছেন। এখানে লিন্ক। মুক্তাঙ্গনে নিবন্ধন করার সময়ই নিবন্ধন-পদ্ধতির বাধ্যতামূলক অংশ হিসেবে আপনার এই নীতিটির ব্যাপারে অবগত হওয়ার কথা। নীতিটি আপনাকে আবারও মনে করিয়ে দিচ্ছি: ৭। অন্য ব্লগে ছাপানো পোস্ট মুক্তাঙ্গনে ছাপানো, অথবা মুক্তাঙ্গনে ছাপানো পোস্ট অন্যত্র ছাপানো আমরা নিরুৎসাহিত করি। সেক্ষেত্রে ব্লগ প্রশাসক চাইলে পোস্টটি মুক্তাঙ্গন থেকে মুছে দিতে পারেন কিংবা প্রথম পাতা থেকে লেখকের নিজস্ব পাতায় সরিয়ে দিতে পারেন। তবে ক্ষেত্র বিশেষে ব্লগ প্রশাসক নিয়মটি প্রয়োগ না করার… বাকিটুকু পড়ুন »

ইমতিয়ার শামীম
সদস্য

আভাটার নিয়ে স্লাভোজ-এর কৌতূহলোদ্দীপক অভিমত, পড়া যেতে পারে এই লিংক থেকে।

  • Sign up
Password Strength Very Weak
Lost your password? Please enter your username or email address. You will receive a link to create a new password via email.
We do not share your personal details with anyone.